রেসিপি

বৈশাখ বরণে বাংলা খাবার

bangla-food

বাঙ্গালির চিরায়ত ঐতিহ্য বৈশাখের সঙ্গে মিশে রয়েছে কিছু মজার খাবার, ইচ্ছে করলে যেগুলো ঘরেই তৈরি করা যায়। তো চলুন দেখে নেয়া যাক:

মুড়ির মোয়া:
উপকরণ: মুড়ি ৫০০ গ্রাম, গুড় ২৫০ গ্রাম, লবণ পরিমাণমতো।
প্রণালী: গুড় হাড়িতে জ্বাল দিন। গুড়ে আঁশ হয়ে গেলে মুড়ির মধ্যে ঢালুন। তারপর বিভিন্ন আকারে মোয়া তৈরি করে নিন। গুড় আঠালো থাকা অবস্থায় মোয়ার শেপ দিন।

বাতাসা:
উপকরণ: চিনি ২ কাপ, পানি এক কাপের চার ভাগের এক ভাগ, খাওয়ার সোডা এক চিমটি।
প্রণালী: চিনি ও পানি জ্বাল দিয়ে যখন ঘন হয়ে আসবে, তখন অনবরত নাড়তে হবে। যখন ফুসফুসে হয়ে আসবে, তখন এক চিমটি খাওয়ার সোডা দিয়ে তাড়াতাড়ি তেল মাখানো খালার ওপর বাতাসার মতো ছোট ছোট করে দিতে হবে। ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন।

লবঙ্গ লতিকা:
উপকরণ: খামির-ময়দা ২ কাপ, তেল ২ টেবিল চামচ, লবণ সামান্য, লবঙ্গ ১৫-২০টি, তেল ভাজার জন্য, পানি প্রয়োজনমতো। ময়দা, তেল ও লবণ দিয়ে শক্ত খামির তৈরি করুন।

পুর-২ কাপ নারকেল কুরানো, গুড়/চিনি ১ কাপ, একসেঙ্গ জ্বাল দিয়ে পুর তৈরি করুন।

সিরা-চিনি ৪০০ গ্রাম, পানি ১ কাপ জ্বাল দিয়ে সিরা তৈরি করে নিন।

প্রণালী: এবার খামির নিয়ে পাতলা রুটি বেলে তার মাঝখানে পুর দিয়ে চারকোণা পরোটার মতো ভাঁজ করে মাঝখানে একটি করে লবঙ্গ দিয়ে পিঠার মুখ আটকে দিন। এবার ডুবো তেলে ভেজে চিনির সিরায় কিছুক্ষণ রেখে তুলে নিন। ঠাণ্ডা হলে সাজিযে পরিবেশন করুন দারুণ মজার লবঙ্গ লতিকা।

মুরালি:
উপকরণ: ময়দা, গুড়, তেল। ময়দা ১ কাপ, চিনি ১০০ গ্রাম, পানি পরিমাণমতো।
প্রণালী: প্রথমে ময়দা একটু গরম তেল দিয়ে মেখে নিন। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে শুকনো করে মেখে বড় একটা গোল রুটি বানিয়ে ছুরি দিয়ে কেটে তেলে ভেজে তুলুন।

আধা কাপ পানিতে চিনি দিয়ে ঘন সিরা তৈরি করুন। এবার ভাজা মুরালি দিয়ে একবারে শুকনো করে নামাতে হবে। ঠাণ্ডা হলে বক্সে ভরে রাখুন।

সন্দেস:
উপকরণ: ছানা ৫০০ গ্রাম, ক্ষীর ৩৫০ গ্রাম, গুঁড়া চিনি ১ কাপ, এলাচ গুঁড়া ১ চা চামচ, আমন্ড বাদাম বাটা ১ টে. চামচ, পেস্তা বাটা ১ টে. চামচ, ঘি ১ টে. চামচ।

প্রণালী: ছানা মেখে মসৃণ করুন। ছানায় গুঁড়া চিনি, ঘি, পেস্তা ও বাদাম বাটা এবং এলাচ গুঁড়া মিশিয়ে চুলায় দিয়ে নেড়ে করে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন। ক্ষীর মিশিয়ে পছন্দমতো আকারে কেটে নিন। এবার সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ছানা তৈরি: দুধ জ্বাল দিয়ে লেবুর রস, সিরকা, ছানার পানি অথবা ঘরে থাকা আগের দই দিয়ে ছানা তৈরি করা যায়।

পহেলা বৈশাখের আগেই খাবারগুলো তৈরি করে রাখুন, দেশি খাবারে আপ্যায়ন করে সবাইকে চমকে দিন।

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (1 votes, average: 5.00 out of 5)
Loading...

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

জনপ্রিয় পোস্ট

To Top